সোনার দুর্গা

এই মুহূর্তে ঢাকের কাঠি

জয়ন্ত সাহা, খবরইন্ডিয়াঅনলাইন, আসানসোলঃ    প্রায় পাঁচশো বছর আগে আসানসোলের কুলটির ডিসেরগড় গ্রামে মন্ডল পরিবার স্বপ্নাদেশে জানতে পান একটি পুকুরে মা দুর্গার সিংহাসন ও ঘট ও খর্গ আছে, সকাল সকাল ঢাক ঢোল নিয়ে সেই পুকুরে থেকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে ছোট্ট ঘট ও একটি সিংহাসন ও খর্গ। তখনই মা দুর্গা নিজের বর্ণনা অনুযায়ী সেইমতো সিংহবাহিনী মা দুর্গা তৈরি করেন সোনা দিয়ে। এই পুজো কেবলমাত্র মণ্ডল পরিবারের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে না বর্তমানে সাতটি পরিবার এই পুজো করেন।

 

 

দুর্গা পুজোর চার দিন ডিসেরগড় গ্রামের বিশ্বনাথ চ্যাটার্জির বাড়িতে পুজো হয়। এছাড়া বারো মাস বিভিন্ন শরীকের বাড়িতে মা দুর্গার পুজো অর্চনা চলে। নিত্য অন্য ভোগ হয় মায়ের কোন বলি প্রথা নেই তবে চাল কুমড়া বলি হয়। বর্তমানে সোনার দুর্গা র পুজো বরাকর বেগুনিয়া গ্রামে কানাইলাল মুখার্জির বাড়িতে চলছে। পূজোর সময় ডিসেরগড় গ্রামে বিশ্বনাথ চ্যাটার্জি বাড়িতে চলে যাবে সেখানেই পূজা অর্চনা হবে ।

 

সাত পরিবারের সদস্য ছাড়াও গ্রামের সাধারণ মানুষ এই কদিন আনন্দ উপভোগ করেন।ভোগ না খেয়ে কেউই জান না। এছাড়া পুকুর থেকে দুটি খরগো পাওয়া গিয়েছিল কিন্তু সেই খর্গ কাপড়ে মোড়া থাকে। কোন রকম বলি ওই খর্গ দিয়ে হয় না কেবলমাত্র পূজার জন্য তা রাখা থাকে ঝারখন্ড সীমান্তবর্তী এলাকায় অবস্থিত বরাকর আবার পাশেই পুরুলিয়া জেলা এই সমস্ত জায়গা থেকে প্রচুর ভক্ত সমাগম হয়। ধুমধাম করে পুজো কদিন বিভিন্ন অনুষ্ঠান হয়।বিশ্বনাথ বাবু মারা যাবার পর তার পরিবার এই পুজো চালিয়ে যাচ্ছেন।সব মিলিয়ে ধুমধামে ডিসেরগড়ে সোনার দুর্গা পুজো
মেতে উঠেন পরিবারের
সদস্যরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *