সংযোগ ও যোগাযোগ ব্যবস্থার প্রসারে নীতি আয়োগের উদ্যোগে বিশ্বের বৃহত্তম হ্যাকাথন ‘মুভ হ্যাক’-এর সূচনা

এই মুহূর্তে পাঁচমিশালী

খবরইন্ডিয়াঅনলাইন, নয়াদিল্লিঃ   দেশে ভবিষ্যতের উপযোগী এক যোগাযোগ ও পরিবহণ ব্যবস্থা গড়ে তুলতে সিঙ্গাপুর সরকারের সহযোগিতায় ‘মুভ হ্যাক’ নামে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এক হ্যাকাথন কর্মসূচির সূচনা করেছে নীতি আয়োগ। দশটি থিমকে অবলম্বন করে এবং অনলাইন, ফলোড বাই সিঙ্গাপুর লেগ ও নয়াদিল্লিতে অন্তিম পর্যায়ের ফাইনাল বা চূড়ান্ত প্রক্রিয়ার মাধ্যমে এই হ্যাকাথন অনুষ্ঠিত হবে। আন্তর্জাতিক হ্যাকাথনগুলির ক্ষেত্রে এটি হল এক বৃহত্তম প্রচেষ্টা।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, পরিবহণ এবং সংযোগ ও যোগাযোগ হল একুশ শতকের উদ্ভাবন এবং অর্থনৈতিক বিকাশ ও অগ্রগতির এক সম্ভাবনাময় চালিকাশক্তি। উদ্ভাবন প্রযুক্তি এবং বাণিজ্যিক মডেল বা আদর্শ পন্থাপদ্ধতিগুলি বিশ্বের পরিবহণ ক্ষেত্রে এক নাটকীয় রূপান্তর সম্ভব করে তোলার মতো যথেষ্ট সম্ভাবনাপূর্ণ। যোগাযোগ ব্যবস্থার মধ্যে রয়েছে পায়ে চলা থেকে শুরু করে ব্যক্তিগত পরিবহণ তথা জন-পরিবহণ। পণ্য পরিবহণের বিষয়টিও যুক্ত এই যোগাযোগ ব্যবস্থার মধ্যে। শহর ও গ্রাম-জীবনে এর প্রভাব ও তাৎপর্য যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ।

যোগাযোগের ক্ষেত্রে উদ্ভূত সমস্যার সমাধানে ‘মুভ হ্যাক’ এক উদ্ভাবন-ভিত্তিক গতিশীল দিশার সন্ধান দেবে বলে আশা করা হচ্ছে। হ্যাকাথন অভিযানটির দুটি বিশেষ দিক রয়েছে। প্রথমটি হল, ‘জাস্ট কোড ইট’। এর লক্ষ্য হল পণ্য, প্রযুক্তি, সফ্‌টওয়্যার এবং পরিসংখ্যানগত তথ্য বিশ্লেষণের ক্ষেত্রে উদ্ভাবন প্রচেষ্টার মাধ্যমে সমাধানসূত্র খুঁজে বের করা। অন্যদিকে, ‘জাস্ট সল্‌ভ ইট’ হল উদ্ভাবনমূলক এক বাণিজ্যিক চিন্তাভাবনা যা প্রযুক্তির সাহায্যে সংযোগ ও যোগাযোগ পরিকাঠামোর আমূল রূপান্তর সম্ভব করে তুলবে।

‘মুভ হ্যাক’-এ অংশগ্রহণ করতে পারবে বিশ্বের যে কোন দেশের নাগরিক। https://www.movehack.gov.in-এ গিয়ে নাম নথিভুক্ত করতে হবে। অনলাইন পদ্ধতিতে আবেদন পেশের ভিত্তিতে শীর্ষ ৩০টি দলকে দু’দিনের জন্য (১ ও ২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮) সিঙ্গাপুর সফরের সুযোগ দেওয়া হবে। তাদের নেতৃত্ব ও শিক্ষাদানের দায়িত্বে থাকবেন শীর্ষস্থানীয় বিশেষজ্ঞরা। নকশা তৈরি ও উদ্ভাবন, বাণিজ্যিক সম্ভাবনা, প্রযুক্তিগত সমাধান, গ্রাহকদের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন ও বিপণনের ক্ষেত্রে টিমগুলিকে পরামর্শ দেওয়া হবে বিশেষজ্ঞদের পক্ষ থেকে। সিঙ্গাপুরের শীর্ষ ২০টি দলকে এ বছর ৫ ও ৬ সেপ্টেম্বর নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠেয় ফাইনাল রাউন্ডে অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়া হবে।

বিজয়ীদের নাম ঘোষিত হবে এ বছর ৭ ও ৮ সেপ্টেম্বর নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠেয় ‘মুভ সামিট, ২০১৮’তে (http://movesummit.in)। এর উদ্বোধন করবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। শীর্ষ স্থান অধিকারী দশটি টিমকে পুরস্কৃত করা হবে। মোট পুরস্কার মূল্য ২ কোটি টাকারও বেশি।

এই হ্যাকাথনের উদ্যোগ-আয়োজনের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে ‘হ্যাকার আর্থ’ এবং ন্যাসকম। বিচারকমণ্ডলীর দায়িত্ব পালন করবেন বাণিজ্য ও শিল্প জগতের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা। যাঁরা ইতিমধ্যেই বিচারকের দায়িত্ব পালনে তাঁদের সম্মতি জানিয়েছেন তাঁরা হলেন শ্রীমতী দেবযানী ঘোষ (প্রেসিডেন্ট ন্যাসকম), শ্রীমতী নিভৃতি রাই (ইন্টেল ইন্ডিয়ার প্রধান), মিঃ ডেনিস ওঙ্গ (বিশিষ্ট স্থপতি এবং ভেরিজোন-এর আর্কিটেকচার অ্যান্ড সিস্টেম্‌স ইঞ্জিনিয়ারিং-এর প্রধান) এবং মিঃ পি আনন্দন (সিইও, ওয়াধানি এআই)।

‘মুভ হ্যাক’-এর সূচনাকালে নীতি আয়োগের সিইও শ্রী অমিতাভ কান্ত বলেন যে ‘মুভ হ্যাক’ হল বিশ্বের প্রথম একটি মঞ্চ যা সরকারি ও বেসরকারি পরিবহণ, সড়ক নিরাপত্তা, বহুমুখী সংযোগ ও যোগাযোগ ব্যবস্থা এবং নতুন যুগের উপযোগী প্রযুক্তির দিকে লক্ষ্য রেখে পরিকল্পনা করা হয়েছে।

‘মুভ হ্যাক’ সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য ও বিশদ বিবরণের জন্য https://www.movehack.gov.in – এই ওয়েবসাইটটিতে যোগাযোগ করা যেতে পারে। ( তথ্যঃ পিআইবি )।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *