পিরিয়ড নিয়ে হাস্যকর কিছু কথা

লাইফস্টাইল

খবরইন্ডিয়াঅনলাইন, ওয়েবডেস্কঃ      সব মেয়েকেই পিরিয়ড নিয়ে বিভিন্ন ভ্রান্ত ধারণা পার হতে হয়েছে জীবনের কোনো না কোনো সময়ে।  এসব কুসংস্কার বেশিরভাগ সময়ে পুরুষের তৈরি।

১) পিরিয়ড ‘অস্বাভাবিক’

১৮৭৫ সালে ড. এ এফ এ কিং দাবি করেন, পিরিয়ড হওয়াটা অস্বাভাবিক এবং প্রাকৃতিক নয়। তিনি দাবি করেন, বছর জুড়েই নারীর গর্ভবতী থাকা উচিৎ। এতে পিরিয়ডের মতো ‘অস্বাভাবিক’ এবং প্রকৃতিবিরুদ্ধ একটি ঘটনা এড়ানো যাবে।

২) পিরিয়ডের সময়েই নারীরা উর্বর থাকেন

বর্তমানে আমরা জানি যে পিরিয়ডের সময়েই নারীর গর্ভবতী হবার সম্ভাবনা সবচেয়ে কম। কিন্তু মধ্য ১৮শ শতকের দিকে ধারণা করা হতো নারীর পিরিয়ড হলো তার উর্বরতার সময় এবং এ সময়েই তার গর্ভধারণের সম্ভাবনা বেশি।

৩) পিরিয়ড সেক্সের ফলে বিকলাঙ্গ শিশু জন্মায়

ফরাসীরা বিশ্বাস করত, পিরিয়ডের সময়ে যৌনতার ফলে যেসব শিশু জন্ম নেয়, তারা হবে আকারে ছোট, ধীরগতির, বিষণ্ণ এমনকি তারা হবে বিকলাঙ্গ এবং দুর্গন্ধযুক্ত।

৪) পিরিয়ডের সময়ে নারীরা কিছুই করতে পারেন না

ড. হোরাশিও স্টরার নামের এক ব্যক্তি দাবি করেন, নারী ডাক্তাররা তাদের পিরিয়ড চলাকালীন সময়ে কাজ করতে পারবেন না। কারণ এ সময়ে নারীরা ঠিকমত কাজ করতে পারেন না এমনকি তাদের হাতে রোগীরা নিরাপদ নন।

৫) পিরিয়ডের কারণে ফসল নষ্ট হয়

এক রোমান পরিবেশবিদ প্লিনি পিরিয়ড নিয়ে অদ্ভুত সব কথা বলে গেছেন। তিনি দাবি করেন, পিরিয়ড চলছে এমন নারীর সংস্পর্শে এলে ফসল নষ্ট হয়ে যায়, ওয়াইন টক হয়ে যায়, বাগানের বীজ শুকিয়ে যায়, গাছের ফল ঝরে পড়ে, ইস্পাতের ধার কমে যায়, এমনকি ব্রোঞ্জ এবং লোহায় মরিচা পড়ে।

৬) পিরিয়ডের সময়ে মেয়েদের ক্লাস বা অফিসে যাওয়া উচিৎ নয়

মেয়েদেরকে পড়াশোনা এবং কর্মক্ষেত্র থেকে দূরে রাখতে ১৮শ দশকের শেষের দিকে এডওয়ার্ড ক্লার্ক নামের এক ব্যক্তি দাবি করেন পিরিয়ডের সময়ে মেয়েদেরকে এক সপ্তাহ বাধ্যতামূলক ছুটি কাটাতে হবে। তার এই দাবির কারণে মেয়েদের শিক্ষা ও কর্মক্ষেত্র উভয় দিকেই যোগদান কঠিন হয়ে পড়ে।

৭) পিরিয়ডের সময়ে কাজ করলে মেয়েরা পাগল হয়ে যায়

এডওয়ার্ড ক্লার্কের সুত্র ধরেই ১৮৮৩ সালে এক বইতে জর্জ অস্টিন নামের এক ব্যক্তি দাবি করেন, পিরিয়ডের সময়ে বেশি কাজ করলে মেয়েরা পাগল হয়ে যায়। এই সমস্যাকে তিনি নাম দেন ‘এরোটোম্যানিয়া’।

৮) পিরিয়ডের সময়ে মেয়েদের আশেপাশে থাকা পুরুষরা পাগল হয়ে যায়

ক্লার্ক এবং অস্টিনের সুত্র ধরে আরো এক ব্যক্তি নারীদের ঘরে আটকে রাখার ফন্দি আঁটেন। ড. উইলিয়াম ক্যাপ দাবি করেন, পিরিয়ডে মেয়েদের তো সমস্যা হয়ই, তারা নিজেদের আশেপাশে থাকা পুরুষদেরও পাগল করে দেয়।( তথ্যঃ সংগৃহীত )।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *